রাজধানীতে ছাত্রদল-পুলিশ ব্যাপক সংঘর্ষ

রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ছাত্রদলের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিপেটা ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়েছে পুলিশ। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল মেরেছেন নেতাকর্মীরা। রোববার সকাল সোয়া ১১টার দিকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, কর্মসূচি ঘিরে সকাল ১০টার দিক থেকে ছাত্রদল ও বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাব এলাকায় জড়ো হতে থাকেন। সোয়া ১১টার দিকে তারা রাস্তায় নামেন।

তখন তাদের বাধা দেয় পুলিশ। একপর্যায়ে পুলিশ লাঠিপেটা শুরু করে। পুলিশের লাঠিপেটায় নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান। তারপর নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। ভাঙচুর করেন আশপাশে। তখন তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ও কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। চলে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া।

সংঘর্ষে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেলসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। অন্যদিকে সংঘর্ষের কয়েকজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

লেখক মুস্তাক আহমেদের মৃত্যু, দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলসহ চলমান বিভিন্ন ইস্যুতে আজ প্রেসক্লাবে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের কথা ছিলো বিএনপির। এ উপলক্ষে সকাল থেকে দলটির নেতা-কর্মীরা প্রাসক্লাব প্রাঙ্গণে জড়ো হতে থাকেন।

তবে প্রেসক্লাবে তাদের বিক্ষোভ সমাবেশ করার অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। পরে সেখান থেকে মিছিল বের করার চেষ্টা করে দলটির নেতা-কর্মীরা। এসময় তাদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। ফলে দুপক্ষের সংঘর্ষে প্রেসক্লাব ও এর আশ-পাশের এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, সংঘর্ষ চলাকালীন তাদের বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ